হিজাব বি’তর্কে শিক্ষিকার মাম’লায় প্রধান শিক্ষক কা’রাগা’রে


নওগাঁয় ‘হিজাব বি’তর্ক’ নিয়ে আলোচিত শিক্ষিকা আমোদিনী পালের দায়ের করা মাম’লায় জামিন নিতে আদালতে এসেছিলেন একই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ধরনী কান্ত বর্মন। আদালত জা’মিন আবেদন

নামঞ্জুর করে তাকে কা’রা’গারে পাঠানো নির্দেশ দেন। মি’থ্যা তথ্য ছড়িয়ে ধর্মীয় অনুভূতি’তে আ’ঘাত ও মা’নহা’নির অভি’যোগে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার দাউল বারবাকপুর উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান

শিক্ষক আমোদিনী পাল গত শনিবার বিকেলে মহাদেবপুর থা’নায় এ মা’মলা করেন।এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাতে ওই মা’মলার এজাহা’রভুক্ত আ’সামি কিউএম সাঈদ ও কাজী সামসুজ্জামান মিলন নামে স্থানীয় দুই সাংবাদিককে গ্রে”প্তার করেছে মহাদেবপুর থা’না পু’লিশ। একই মা’ম’লার এজাহা’রভুক্ত এক নম্বর আসা’মি ধরনী কান্ত বর্মন দুপুরে নওগাঁর সিনিয়র জুডিশিয়াল আমলী আদালত-৩ এ হাজির হয়ে জা’মিনের আবেদন করেন। আদালতের বিচারক তাজউল ইসলাম তার জা’মিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে

কা’রাগা’রে পাঠানোর নির্দেশ দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোর্ট পু’লিশ পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম। মাম’লার এজাহার সূত্রে জানা যায়, দাউল বারবাকপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আমোদিনী পাল তার বিরু’দ্ধে হিজাব নিয়ে মি’থ্যা তথ্য ছড়িয়ে ধ’র্মীয় অনুভূ’তিতে আ’ঘাত, তাকে সামাজি’কভাবে হেয় করা ও বেআইনিভা’বে দলব’দ্ধ হয়ে হা’ম’লার অভি’যোগে পাঁচজনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ২০-২৫ জনের

বি’রুদ্ধে মা’মলা’ করেন। এর আগে দাউল বারবাকপুর উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পে’টানো’র অভি’যোগ তুলে বিদ্যালয়ে হাম’লার ঘটনার তিন দিন পর গত ১০ এপ্রিল থা’নায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ধরনী কান্ত বর্মন।


Leave a Reply

Your email address will not be published.