সুন্দরবনে বাঘের সঙ্গে ল’ড়াই করে ফিরে এলেন সালেহ


মোংলার সুন্দরবনে মাছ ধরার সময় বাঘের কা’মড় ও থাবা খেয়েও প্রাণে বেঁ’চে গেছেন জেলে আবু সালেহ আকন (৪৫)। বাঘের আ’ক্রম’ণে শ’রী’রে ক্ষ’ত নিয়ে হাস’পা’তালে চিকিৎ’সা’ধীন রয়েছেন সালেহ। এদিকে

বাঘের আক্র’মণের মুখ থেকে জীবন নিয়ে ফিরে আসা ঐ জেলেকে দেখ’তে হাস’পা’তালে উৎসুক মানুষের ভিড়ে অনেকটা বে’কায়’দায় পড়েছেন কর্তৃপক্ষ। বাঘের আক্র’ম’ণের শি’কার জেলে আবু সালেহ আকন ও

প্রত্যক্ষদর্শী সঙ্গী মো. হানিফ জানান, গতকাল রবিবার (১৭ এপ্রিল) সকাল ৭টার দিকে মোংলার সুন্দরবন ইউনিয়নের দক্ষিণ বাজিকরখণ্ড গ্রামের জে’লে আবু সালেহ আকন ও মো. হানিফ সুন্দরবনের জিউধরা এলাকার শুয়ারমারা খালে চরপাটা জাল দিয়ে মাছ ধরছিলেন। এ সময় হঠাত্ একটি বাঘ আ’ক্র’মণ করে সালেহকে। পিছন থেকে বাঘটি সালেহর ডান হাতে একটি কামড় ও বাম হাতে, বাম ঘাড়ে ও পিঠে ছয়টি থাবা দিয়ে এবং ‘আঁচড়ে জখ’ম করে। বাঘের সঙ্গে ধ’স্তাধ’স্তির এক পর্যায়ে সালেহ খালে লা’ফিয়ে পড়ে ডাক-চিত্কার শুরু করলে বাঘ’টি সেখান থেকে বনের গহীনে চলে যায়।

পরে ঘটনাস্থল থেকে দূরে থাকা সালেহর সঙ্গী হানিফ ও সালেহর চাচাতো ভাই আসাদুল সরদার তাকে উ’দ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। হাসপাতা’লের কর্তব্যরত চি’কিৎসক ডা. ফয়সাল হোসেন স্বর্ণ বলেন, সালেহর শ’রী’রে’র বিভিন্ন জায়গায় সাতটি কা’মড়, থাবা ও আঁ’চড়ের ক্ষ’ত রয়েছে। তাকে হাস’পা’তালে রেখে চি’কি’ৎসা দেওয়া হচ্ছে। এদিকে স্থানীয় ইউপি মেম্বার (সংরক্ষিত) মাসুমা বেগম বলেন, সালেহ একজন পেশাদার জেলে, তার বাবাও জেলে ছিলেন। বন বিভা’গের কাছ থেকে পাশ-পারমিট নিয়ে সুন্দরবনে চরপাটা জাল দিয়ে মাছ ধরতে গেলে বাঘের আ’ক্র’মণে’র শি’কা’র হন সালেহ। সালেহ খুব ”সা’হ’সি হওয়ায় বাঘের সঙ্গে ধ’স্তাধ’স্তি করে প্রা’ণে বেঁ’চে এসেছেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published.